করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে সামিল ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যান্ড গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশন

gif of bc roy

দুর্গাপুরঃ করোনা অতিমারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দেশের অগ্রগণ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে দুর্গাপুরের ফুলঝোড়ের ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যান্ড গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশন। অতিমারি শেষ না হওয়া পর্যন্ত এই লড়াই জারি থাকবে, জানিয়েছেন প্রত্যয়ী কর্তৃপক্ষ।

একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পড়ুয়াদের সঠিক পঠন-পাঠনের মধ্য দিয়ে তাদের ভবিষ্যৎ কর্মজীবনের দিশা দেখাবে। এটা ওই প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব। কিন্তু এর বাইরেও সমাজের প্রতি প্রতিষ্ঠানের একটা দায় থাকে। আজকের প্রতিযোগিতার বাজারে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানই সেই দায় এড়িয়ে চলে। সারা দেশে হাতে গোণা যে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান সামাজিক কাজে নিজেকে ব্যাপৃত করে রেখেছে তাদের মধ্যে সামনের সারিতে রয়েছে দুর্গাপুরের ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ। কোভিড-১৯ অ্যাওয়ারনেস সোশ্যাল কনট্যাক্ট প্রোগ্রামের সূচনা

১৯১৮-১৯ সালের স্প্যানিশ ফ্লু মহামারিতে লক্ষ লক্ষ লোকের প্রাণ গিয়েছিল। ২০২০ সালের শুরুতেও সেই আতঙ্ক বয়ে নিয়ে আসে কোভিড-১৯। পৃথিবী কত এগিয়ে গিয়েছে। মানুষকত আধুনিক হয়ে উঠেছে। স্বাস্থ্য পরিষেবার চরম উন্নতি হয়েছে। তা সত্বেও করোনা অতিমারি সমগ্র মানবজাতিকে অসহায় করে দেয়। কার্যত থমকে যায় সমগ্র জনজীবন। কবে ভ্যাকসিন আসবে সেই ভরসায় বসে না থেকে চিকিৎসককদের পরামর্শ, মাস্ক পরুন, স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন, পরস্পরের সঙ্গে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন।

এখন পর্যন্ত সারা বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা প্রায় ১৮ লক্ষ। দিনে গড়ে প্রায় সাড়ে ৭ লক্ষ হারে মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। এদেশে এখন পর্যন্ত প্রায় ১ লক্ষ ৪৭ হাজার জনের হয়েছে। দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা গড়ে প্রায় সাড়ে ২৪ হাজার জন। এই পরিস্থিতিতে আরও অনেকের মতো হাত গুটিয়ে বসে থাকতে পারেনি ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যান্ড গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশন। কর্পোরেট সোশ্যাল রেসপনসিবিলিটি নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে আসেন তাঁরা। এই রাজ্যের একমাত্র কলেজ হিসাবে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন, এমনটাই দাবি কলেজ কর্তৃপক্ষের।

এবার দেখা যাক, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এখন পর্যন্ত কি কি কর্মকান্ড নিয়েছে কলেজটি।

করোনা অতিমারির শুরুর সময় থেকে নানাভাবে কাজ করে চলেছে এই কলেজ। কোভিড-১৯ নিয়ে সচেতনতা গড়তে ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের পক্ষ থেকে সেপ্টেম্বরের শুরুতে ছয় দিনের কোভিড-১৯ অ্যাওয়ারনেস সোশ্যাল কনট্যাক্ট প্রোগ্রাম হাতে নেওয়া হয়। ডেভলপমেন্ট ম্যানেজার অমিতাভ ঘোষ, অধ্যাপক দেবাশিস গুহ, সমীর সাহা, অজিতেশ ভট্টাচার্য এবং যোগিন্দর প্রসাদের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিম নিজেদের আক্রান্ত হওয়ার ভয় দূরে সরিয়ে রেখে পশ্চিম বর্ধমান জেলার অন্তত ৫১ টি বসতি ও বাজার এলাকায় গিয়ে ছয় দিন ধরে মানুষকে সচেতন করার কাজ করেন।চলছে বাজার এলাকায় সচেতনতা প্রচার ও মাস্ক বিলি

পতাকা উড়িয়ে এই বিশেষ টিমের যাত্রার সূচনা করেন ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ডিরেক্টর ডাঃ পীযূষ পাল রায়, কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স এর চিফ অমিতাভ চক্রবর্তী, কলেজের জনসংযোগ বিভাগের সিনিয়র ম্যানেজার সৌভিক চন্দ্র।  ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যাকাডেমি অফ প্রফেশনাল কোর্সেস এর প্রিন্সিপ্যাল ডাঃ সৌরভ দত্ত টিমের সবাইকে শুভেচ্ছা জানান। উপস্থিত ছিলেন কলেজের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও অন্যান্য কর্মীরা। এই টিম আসানসোল-দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলের প্রতিটি বাজারে গিয়ে সচেতনতার বার্তা দিয়েছে। বিনামূল্যে কলেজের নাম লেখা মাস্ক বিলি করা হয়েছে। দেওয়া হয়েছে সচেতনতামূলক লিফলেট। এই সব কর্মকান্ড শুধু দুর্গাপুরেই সীমিত ছিল এমন নয়, টিম গিয়েছিল অণ্ডাল, উখড়া, রানিগঞ্জ, পান্ডবেশ্বর, পানাগড়, বুদবুদেও।

মাস্ক, স্যানিটাইজার বিলি ও সচেতনতা প্রচার

পিছিয়ে নেই ডাঃ বিসি রায় পলিটেকনিক কলেজও। এখানকার এনএসএস টিম বিধাননগরেরের আম্মা কলোনিতে বিশেষ কোভিড-১৯ সচেতনতা কর্মসূচীর আয়োজন করেছিল। করোনা থেকে বাঁচতে কি করতে হবে এবং কি করা যাবে না সে ব্যাপারে সচেতন করা হয় বাসিন্দাদের। লিফলেটও বিলি করা হয়। এছাড়া বাড়ি বাড়ি ঘুরে মাস্ক, স্যানিটাইজার, সাবান তুলে দেওয়া হয় কলোনির প্রায় আড়াইশো বাসিন্দার হাতে।

স্বাধীনতা দিবসে দু’জন করোনা যোদ্ধাকে সম্মানিত করেন ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যান্ড গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশন কর্তৃপক্ষ। মিশন হাসপাতালের কার্ডিয়াক সার্জেন ডাঃ সুজয় চ্যাটার্জী করোনার চিকিৎসা করতে করতে এক সময় নিজেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে যান। চিকিৎসার পরে সুস্থ হয়ে উঠে ফের নব উদ্যোমে নেমে পড়েন চিকিৎসা করতে। একই সঙ্গে নিউ টাউনশিপ থানার ওসি বিজন সমাদ্দারও লকডাউনের শুরুর দিন থেকে করোনা আতঙ্ককে দূরে সরিয়ে রেখে সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে প্রশংসিত হন। এবারের ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবসে এই দুজনকে সম্মানিত করেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের জেনারেল সেক্রেটারি তরুণ ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘সমাজের জন্য যেভাবে এঁরা জীবনের ঝুঁকি অগ্রাহ্য করে সামনে থেকে কাজ করে চলেছেন তাতে কোনও প্রশংসাই যথেষ্ট নয়।’’তরুণ ভট্টাচার্য, জেনারেল সেক্রেটারি, ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যান্ড গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশন

শুধু কলেজের বাইরেই নয়, কলেজ চৌহুদ্দির ভিতরেও কর্তৃপক্ষ করোনার বিরুদ্ধে লড়াই জারি রেখেছেন। কিভাবে? ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যাকাডেমি অফ প্রফেশনাল কোর্সেস এর ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে সম্প্রতি ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়। করোনা অতিমারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের নিত্য নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। কিভাবে সেই চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করা যাবে, সে বিষয়ে “হেল্থ সায়েন্সেস প্র্যাকটিসেস ইন পোস্ট-প্যানডেমিক এরা-স্ট্র্যাটেজিস টু স্টে রেলেভ্যান্ট অ্যান্ড কমপিটিটিভ” শীর্ষক একটি ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়। দ্য মিশন হসপিটাল, দুর্গাপুরের সহযোগিতায় আয়োজিত ওই ওয়েবিনারে অপটোমেট্রি, মেডিকেল ল্যাব টেকনোলজি এবং হসপিটাল ম্যানেজমেন্টের প্রথম বর্ষের পড়ুয়ারা অংশ নেন। স্বাস্থ্য পরিষেবায় অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার করোনা মোকাবিলায় কি ভূমিকা রাখছে সে বিষয়ে এই ওয়েবিনার থেকে অবহিত হন পড়ুয়ারা।

২০০০ সালে প্রতিষ্ঠার পরে পায়ে পায়ে পেরিয়ে গেল ২০ বছর। যাত্রাপথের গৌরবোজ্জ্বল মুকুটে যুক্ত হয়েছে বহু পালক। তবে করোনা অতিমারির সময় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর এমন বহুবিধ উদ্যোগ প্রশংসা কুড়িয়েছে সর্বস্তরে। এই কোভিড পরিস্থিতিতে ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ডিরেক্টর ডাঃ পীযূষ পাল রায়, ডাঃ বিসি রায় ফার্মেসি কলেজের ডিরেক্টর সুব্রত চক্রবর্তী, ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যাকাডেমি অফ প্রফেশনাল কোর্সেস এর প্রিন্সিপ্যাল ডাঃ সৌরভ দত্ত এবং ডাঃ বিসি রায় পলিটেকনিক কলেজের প্রিন্সিপ্যাল ডাঃ অরিন্দম চক্রবর্তীর নেতৃত্বে বছরভর সাফল্যের সঙ্গে অনলাইন ক্লাসের পাশাপাশি যেভাবে করোনার বিরুদ্ধে ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যান্ড গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশন লড়াই জারি রেখেছে, তা নিয়ে রাজ্য ও দেশ তো বটেই, ভিন দেশ থেকেও সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বহুজন সাধুবাদ জানাচ্ছেন।

কলেজের জেনারেল সেক্রেটারি তরুণ ভট্টাচার্য জানান, প্রতিটি মানুষের যেমন সমাজের প্রতি দায় থাকে তেমনই যে কোনও প্রতিষ্ঠানেরও দায় থাকে। তিনি বলেন, ‘‘শিক্ষার প্রসারের পাশাপাশি স্থানীয় ও সংলগ্ন এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়াতে বরাবর এগিয়ে এসেছে ডাঃ বিসি রায় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অ্যান্ড গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশন। ভবিষ্যতেও এই ধারায় বজায় থাকবে।’’

 

 

 

 

Durgapur Darpan

খবর তো আছেই। সেই সঙ্গে শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্বাস্থ্য, রান্না সহ আরও নানা কিছু। Durgapur Darpan আপনার নিজের মঞ্চ। যোগাযোগ- ই-মেইল- durgapurdarpan@gmail.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This will close in 0 seconds

This will close in 0 seconds

error: Content is protected !!
    /