হাতুড়ি দিয়ে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে খুনের পর আত্মঘাতী চিকিৎসক

এদিন এক সহকর্মী চিকিৎসকের বাড়িতে গিয়ে দেখেন দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। জানলা দিয়ে উঁকি মেরে ভিতরে রক্তাক্ত দেহগুলি দেখতে পান।  

——————————————-

দুর্গাপুর দর্পণ, ডেস্ক, ৬ ডিসেম্বর ২০২৩: হাতুড়ি দিয়ে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে খুনের পর আত্মঘাতী হলেন চিকিৎসক। এমন ভয়াবহ ঘটনা ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) রায়বেরেলিতে। রেলের লালগঞ্জ রেলওয়ে কোচ কারখানার মেডিক্যাল অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাঃ অরুণ কুমার। স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে থাকতেন সরকারি আবাসনে।

প্রতিবেশীরা পুলিশকে জানিয়েছেন, ওই পরিবারের সদস্যদের ঘরের বাইরে শেষবার দেখা গিয়েছিল রবিবার। এদিন এক সহকর্মী চিকিৎসকের বাড়িতে গিয়ে দেখেন দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। জানলা দিয়ে উঁকি মেরে ভিতরে রক্তাক্ত দেহগুলি দেখতে পান।  

খবর পেয়ে পুলিশ আসে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, স্ত্রী ও সন্তানদের হত্যার পর আত্মঘাতী হয়েছেন ওই ব্যক্তি। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। পুলিশের দাবি, সম্ভবত মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন ওই চিকিৎসক। পুলিশ জানিয়েছে, প্রথমে স্ত্রী অর্চনা, ছেলে আরভ ও মেয়ে আদিভাকে ইঞ্জেকশন দিয়ে অচেতন করেন ওই চিকিৎসক। এর পর তাদের মাথায় হাতুড়ি মেরে খুন করেন। সবশেষে নিজের হাতের শিরা কাটার পরে গলায় দড়ি দেন তিনি। (বিশেষ বিশেষ ভিডিও দেখতে DURGAPUR DARPAN ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করুন)।

Leave a Comment

error: Content is protected !!
mission hospital advt