মুর্শিদাবাদে হাড়হিম করা ঘটনা, কিশোরকে খুন করে জ্বালিয়ে দিল তারই বন্ধুরা

দুর্গাপুর দর্পণ ডেস্ক, ১৭ জানুয়ারি ২০২৪: এক নাবালককে খুনের পর প্রমাণ লোপাটের জন্য ৪ বন্ধু দেহ পুড়িয়ে দিল। এমনই অভিযোগ উঠেছে মুর্শিদাবাদের (Murshidabad) ফারাক্কায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ফ্রি ফায়ার গেমের আইডি হ্যাকিং নিয়ে বিবাদের জেরেই এই ভয়াবহ ঘটনাটি ঘটেছে। ৪ অভিযুক্তকেই গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত কিশোরের নাম পাপাই দাস। ফারাক্কা বাঁধ প্রকল্প আবাসনের ৯ নম্বর ব্লকের বাসিন্দা। কয়েকদিন ধরে নিখোঁজ ছিল। পরিবারের তরফে থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করা হয়। সন্দেহ হওয়ায় পুলিশ মৃতের ৪ বন্ধুকে জেরা করতে শুরু করে। কথাবার্তায় সন্দেহ আরও দৃঢ় হয়।

এদিকে ঘোড়ায়পাড়া-নিশিন্দ্রা নৌকো ঘাটের মাঝে ৮ নম্বর ব্লকের ফিডার ক্যানেলের ধারে জঙ্গলের মধ্যে এক কিশোরের দেহ উদ্ধার হয় সোমবার। দেহের নিম্নাংশ উধাও। মুখ ক্ষতবিক্ষত। বুকে লেখা ‘ডোরেমন’ দেখে পরিবারের লোকজন দেহটি সনাক্ত করে। এরপরেই পুরো ঘটনা সামনে চলে আসে তদন্তকারীদের।

পুলিশ গ্রেফতার করে পাপাইয়ের চার বন্ধু অনিক কর্মকার, রৌশন জমাদার, আব্বাস শেখ (১৮) ও শুভজিৎ মাঝিকে। তাদের বয়স ১৬-১৮ বছরের মধ্যে। অনিকের একটি ফ্রি ফায়ার আইডি ছিল। দুই হাজার টাকা দিয়ে তা কেনে পাপাই। কিছুদিন পরে অনিক পাপাইয়ের কাছে আইডিটি চায় ব্যবহারের জন্য। পাপাই দিয়ে দেয়।

রৌশনের সহযোগিতায় অনিক আইডি-টি বদলে দেয় বলে অভিযোগ। তাই নিয়েই শুরু হয় বিবাদ। পাপাইকে খুনের পর প্রথমে দেহটি জঙ্গলে ফেলে দেওয়া হয়। ধরা পড়ার ভয়ে তারা ৬০ টাকা দিয়ে পেট্রল কিনে দেহের উপর ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দেয়। (বিশেষ বিশেষ ভিডিও দেখতে DURGAPUR DARPAN ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করুন)।

Leave a Comment

error: Content is protected !!