পাতালে এ কী বীভৎস আওয়াজ? নরক কী তবে এখানেই? শুনুন সেই হাড়হিম করা আওয়াজ

দুর্গাপুর দর্পণ ডেস্ক, ২০ আগস্ট ২০২৩: রাশিয়ার একদল গবেষক ৮০’এর দশকে সাইবেরিয়ার দুর্গম অঞ্চলে ভূগর্ভস্থ খনিজ জ্বালানীর সন্ধানে খনন কাজ শুরু করেন। ১৯৮৯ সালের ডিসেম্বরে প্রায় ১৪ হাজার মিটার মাটির গভীরে পৌছায় খনন যন্ত্র। ওই বিজ্ঞানীদের দাবি, ১৪ হাজার মিটার গভীরে খনন যন্ত্র প্রবেশ করানোর পর পৃথিবীর কেন্দ্রস্থল থেকে অদ্ভূত শব্দ (strange noise) পান তারা। সেই শব্দ কোনো স্বাভাবিক শব্দ নয়, প্রকৃতির সৃষ্টিও নয় বলে দাবি তাদের।

শুনুন সেই বীভৎস আওয়াজ

বিজ্ঞানীরা জানান, মিনিট খানেকের সেই আওয়াজের মাত্র ২৫ সেকেন্ড রেকর্ড করা হয়েছিল। সেই আওয়াজ পরীক্ষা করে তারা কার্যত হতবাক হয়ে যান। পৃথিবীতে বর্তমান কোন আওয়াজের সঙ্গে তার মিল ছিল না। নরক সম্পর্কে ঘোর অবিশ্বাসী সেই বিজ্ঞানীরাও কেউ ভাবতে শুরু করেন, এ কি নরকের আওয়াজ? যেন বহু মানুষ একসঙ্গে বীভত্‍স আর্তনাদ করে চলেছে প্রচণ্ড যন্ত্রনায়। পৃথিবীর কেন্দ্রস্থল থেকে যেন অনেক মানুষ আর্তস্বরে ক্ষমা প্রার্থনা করছে! কয়েক বছর আগে ফিনল্যান্ডের একটি স্থানীয় পত্রিকা Ammenusastia-য় প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল এই খবরটি।

 

Leave a Comment

error: Content is protected !!
mission hospital advt