তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে ফের উত্তপ্ত দুর্গাপুর

দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুর, ৩০ জানুয়ারি ২০২৪ : তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে ফের উত্তপ্ত পশ্চিম বর্ধমান জেলার (Paschim Bardhaman) দুর্গাপুর। ভাঙচুর করা হল তৃণমূল কর্মীর বাড়ি। 

রবিবার রাতে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত হয়েছিল দুর্গাপুরের ২’নম্বর ওয়ার্ডের মহুয়া বাগান এলাকা। আহত হয়েছিল বেশ কয়েকজন তৃণমূলের কর্মী। তারা ভর্তি আছে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে। গ্রেফতার হয়েছে ওয়ার্ডের যুব সভাপতি সন্দীপ দন্ডপাত সহ মোট চার তৃণমূল কর্মী। পুলিশের তৎপরতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

সোমবার রাতে ধৃত তৃণমূল কর্মী আসলাম আলী ও রফিক আনসারীর বাড়িতে হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ। আসলামেr মা আসমা বিবির অভিযোগ, সোমবার রাতে তাদের বাড়িতে একদল দুষ্কৃতী হামলা চালায়। নগদ টাকা, সোনা, সাইকেল সহ ছাগল চুরি করে নিয়ে চম্পট দেয়। আসবাবপত্র ভাঙচুর করা হয়। মারধরের হুমকি দেওয়া হয়। ওই দুষ্কৃতীরা এলাকার তৃণমূল নেতা সুদীপ কর্মকারের অনুগামী বলে অভিযোগ করেন তিনি।

পাল্টা অভিযোগ তুলে সুদীপ কর্মকার জানান,  তাদের ছেলেদের মেরে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছিল যুব সভাপতি সন্দীপ দন্ডপাত, আসলাম আলী, রফিক আনসারীরা। তাদের ছেলেরা গুরুতর আহত অবস্থায় মহকুমা হাসপাতলে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আবার তাঁদের নামে অভিযোগ তোলা হচ্ছে বাড়ি ভাঙচুরের। এই বাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে ১ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের ব্লক সভাপতি রাজীব ঘোষের নেতৃত্বে বলেও অভিযোগ তোলেন। তাঁরা ব্লক সভাপতির নেতৃত্বে চলেন না বলেই তাদেরকে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন।

যদিও ব্লক তৃণমূলের সভাপতি রাজীব ঘোষ জানান,  তিনি বিষয়টি শুনেছেন এবং পুলিশকে জানিয়েছেন। পুলিশ নিরপেক্ষ তদন্ত করছে। আর যারা এই ধরনের ঘটনা ঘটাচ্ছে তারা একসময় বিজেপির ছত্রছায়ায় ছিল। এখন আবার তৃণমূলে ফিরে এসে এই ধরনের ঘটনা ঘটাচ্ছে। পাল্টা দুর্গাপুর পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য দীপঙ্কর লাহার অভিযোগ, সুদীপ ঘোষ তৃণমূলের একনিষ্ঠ কর্মী। যারা আহত হয়েছে তারাও তৃণমূলের কর্মী। তবে যারা বলছে এই ঘটনা বিজেপি ঘটাচ্ছে সেটা ভুল কথা। উভয় গোষ্ঠীই তৃণমূলের। যে ঘটনা ঘটেছিল তা মেটানোর চেষ্টা চলছে। দলের উচ্চ নেতৃত্বকেও জানানো হয়েছে। (বিশেষ বিশেষ ভিডিও দেখতে DURGAPUR DARPAN ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করুন)।

Leave a Comment

error: Content is protected !!