সাতসকালে দুর্গাপুর স্টেশনে এক মহিলার জুতোপেটা খেলেন ইনি! কেন?

দেখা গেল, ৪ নম্বর প্ল্যাটফর্মে আচমকা এক মহিলা জুতো খুলে সেই জুতো দিয়ে পেটাচ্ছেন এক ব্যক্তিকে। তিনি নিজেকে ছাড়ানোর আপ্রাণ চেষ্টা করছেন।  

——————————————-

দেখুন ভিডিও

দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুর, ২৯ নভেম্বর ২০২৩: বুধবার সকালে পশ্চিম বর্ধমান জেলার (Paschim Bardhaman) দুর্গাপুর স্টেশনে ঘটে গেল এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা! দেখা গেল, ৪ নম্বর প্ল্যাটফর্মে আচমকা এক মহিলা জুতো খুলে সেই জুতো দিয়ে পেটাচ্ছেন এক ব্যক্তিকে। তিনি নিজেকে ছাড়ানোর আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। আশপাশে ভিড় জমে গিয়েছে। কোনও রকমে আরপিএফ ও জিআরপি ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে সেখান থেকে নিয়ে যায়।

জানা গিয়েছে, মহিলার বাড়ি রানিগঞ্জে। তিনি একজন বিজেপি কর্মী। কলকাতায় সভা রয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের। মহিলা সেখানেই যাচ্ছেন। দুর্গাপুর স্টেশনে ওই ব্যক্তিকে দেখে তিনি আর ক্রোধ সামলাতে পারেননি। কেন? মহিলার অভিযোগ, ডাকঘরে চাকরি করে দেওয়ার নাম করে বছর দুয়েক আগে ওই ব্যক্তি প্রায় দু’লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন তাঁর কাছে। চাকরি হয়নি। টাকাও ফেরত পাননি।

তাঁর দাবি, দুবছর ধরে বার বার ফোন করেছেন। প্রথম দিকে ফোন ধরলেও পরের দিকে আর ফোন ধরেননি উনি। এমনকী তাঁর নম্বরটি তিনি ব্লক করে দেন। ফলে তিনি আর যোগাযোগ করতে পারছিলেন না। ফলে টাকা ফেরতের আশা প্রায় ছেড়েই দিয়েছিলেন ওই মহিলা। ধর্মতলায় দলীয় জনসভায় যাবেন বলে বুধবার সকালে  স্পেশাল ট্রেন ধরার জন্য তিনি রানিগঞ্জ থেকে দুর্গাপুরে আসেন। তখনই তিনি আচমকা অভিযুক্ত ব্যক্তিকে দেখতে পান।

এরপরেই মহিলা গুটি গুটি পায়ে তাঁর সামনে পৌঁছে যান। টাকা ফেরত চাইতেই কিছুটা বেসামাল হয়ে পড়েন অভিযুক্ত। এরপর প্রকাশ্যে পায়ের জুতো খুলে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে মারধর শুরু করে দেন তিনি। কেন তিনি এতদিন ফোন ধরেননি, টাকা কবে ফেরত পাবেন, এসব প্রশ্নের উত্তর চাইতে শুরু করেন মহিলা। প্রথমে নিজেকে বাঁচাতে চাইলেও পরে তিনি পড়ি মরি করে ছুটতে শুরু করেন। শেষ পর্যন্ত আরপিএফ ও জিআরপি এসে তাঁকে উদ্ধার করেন। নিজেকে তৃণমূল কর্মী বলে দাবি করেন অবনী মণ্ডল নামে ওই ব্যক্তি। মিথ্যা অভিযোগ আনা হচ্ছে বলেও দাবি করেন তিনি। (বিশেষ বিশেষ ভিডিও দেখতে DURGAPUR DARPAN ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করুন)।

Leave a Comment

error: Content is protected !!
mission hospital advt