দুর্গাপুরে পাথর খাদানে হাত-পা বাঁধা যুবকের দেহ উদ্ধার

দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুর, ১০ জানুয়ারি ২০২৪: পশ্চিম বর্ধমানের (Paschim Bardhaman) দুর্গাপুরের পারুলিয়া সংলগ্ন মোরাম খাদানে বুধবার সন্ধ্যায় হাত, পা বাঁধা যুবকের দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত যুবকের নাম অনিল ভুঁইয়া (২২)। বাড়ি নাচনের ড্যামপাড়া এলাকায়।

প্রথমে যুবকের দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় এক ব্যক্তি। খবর জানাজানি হতেই শোরগোল পড়ে যায় এলাকা জুড়ে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দুর্গাপুর থানার পুলিশ। পুলিশ দেহ উদ্ধার করে। যুবকের দুটি হাত শরীরের পিছনে বাঁধা ছিল। দুটি পা-ও বাঁধা ছিল। শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান। হাতে ট্যাটুতে লেখা ‘আকাশ’।

বাইরে থেকে খুন করে এখানে ফেলা হয়েছে বলে পুলিশের অনুমান। দেহ উদ্ধার করে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। কোথায় খুন করা হয়েছে, কীভাবেই বা এখানে দেহ এল, পুলিশ তদন্ত করে দেখছে। মৃত যুবকের মায়ের দাবি,পরিবারের একমাত্র ভরসা ছিল অনিল। বিয়ের জন্য দিনমজুরের কাজ করে অর্থ সঞ্চয় করছিল। এভাবে কেন খুন করা হল তাঁরা বুঝে উঠতে পারছেন না বলেও জানান।

পশ্চিম বর্ধমান জেলা আদিবাসী গাঁওতার কমলপুরের সভাপতি রবি হাঁসদা জানান, পারুলিয়া এবং রঘুনাথপুরের মাঝামাঝি খাদানে দেহ পড়ে আছে জানতে পারেন তাঁরা। সেখানে পৌঁছে দেখেন নাচন ড্যাম পাড়ার অনিল ভূঁইয়ার দেহ পড়়ে আছে। পাথর খাদানে দিনমজুরের কাজ করত অনিল। অনিলকে যারা খুন করেছে তাদের কঠোর শাস্তি দাবি করেন তিনি। (বিশেষ বিশেষ ভিডিও দেখতে DURGAPUR DARPAN ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করুন)।

Leave a Comment

error: Content is protected !!