You are currently viewing Durgapur : ঘোলা জলে রান্না অঙ্গনওয়াড়িতে, শিশু ও প্রসূতিদের স্বাস্থ্য নিয়ে দুশ্চিন্তা

Durgapur : ঘোলা জলে রান্না অঙ্গনওয়াড়িতে, শিশু ও প্রসূতিদের স্বাস্থ্য নিয়ে দুশ্চিন্তা

প্রায় এক বছর আগে জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতর সাবমার্সিবল পাম্প বসানোর জন্য বোরিং করে। কিন্তু সেই পাম্প আজও চালু হয়নি।

————————————-

দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুর, ৪ নভেম্বর ২০২৩: অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে রান্না করতে হয় ঘোলা জলে। পশ্চিম বর্ধমানের (Paschim Bardhaman) দুর্গাপুরের কাঁকসার মলানদিঘির রুইদাস পাড়ার অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের ঘটনা। ক্ষোভে ফুঁসছেন অভিভাবকরা। অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে রয়েছে একটি টিউবওয়েল। সেই টিউবওয়েলে দিয়েই বের হয় ঘোলা জল।

জলের আয়রণ দূর করতে টিউবওয়েলের মুখে মশারি বেঁধে ছাঁকনির ব্যবস্থা করেছেন অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীরা। তার পর সেই জল রান্নার কাজে ব্যবহার করা হয়। কিন্তু সেই জলও ঘোলা থেকে যায় বলে জানিয়েছেন অভিভাবকেরা। তাঁরা জানান, প্রায় এক বছর আগে জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতর সাবমার্সিবল পাম্প বসানোর জন্য বোরিং করে। কিন্তু সেই পাম্প আজও চালু হয়নি।

বাধ্য হয়ে এখনও সেই টিউবওয়েলের ঘোলা জলেই রান্না হচ্ছে। ওই অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের সহায়িকা ভানু রুইদাস বলেন, ‘‘আয়রণ যুক্ত ঘোলা জলেই রান্না করতে হয়। একাধিকবার পঞ্চায়েতে লিখিতভাবে বিষয়টি জানিয়েছি। কিন্তু কোনও ফল হয়নি।’’ অভিভাবকেরা জানান, ২০ এর বেশি পড়ুয়া এবং বেশ কিছু প্রসূতি মহিলা রয়েছেন। জলের জন্য তাঁদের স্বাস্থ্য নিয়ে দুশ্চিন্তায় অভিভাবকেরা।

দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি তুলেছেন তাঁরা। সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন কাঁকসা পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ প্রবোধ মুখার্জি। তিনি বলেন, ‘‘জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের আধিকারিকদের সঙ্গে কথা হয়েছে। দ্রুত সাবমার্শিবল পাম্প চালু হয়ে যাবে।’’ (বিশেষ বিশেষ ভিডিও দেখতে DURGAPUR DARPAN ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করুন)।

Leave a Reply