বিদ্যুৎ-হীন সরকারি সাবমার্সিবল! রবি ফসলের সেচ নিয়ে দুশ্চিন্তায় চাষীরা

কী করবেন ভেবে কুল পাচ্ছেন না চাষীরা।

——————————————-

সনাতন গরাই, দুর্গাপুর দর্পণ, দুর্গাপুর, ৭ ডিসেম্বর ২০২৩: পশ্চিম বর্ধমান জেলার (Paschim Bardhaman) দুর্গাপুরের কাঁকসার বিদবিহারে অজয় নদের উপর স্থায়ী সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হয় ২০২১ সালে। চাষীদের বহু জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছিল। সেই সব জমির উপর থাকা বেশ কয়েকটি সাবমার্সিবলও ভাঙা পড়ে।

প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, এলাকায় সেচের জন্য সরকারি উদ্যোগে সাতটি সাবমার্সিবল পাম্প বসানো হবে। ২০২২ সালে বিদবিহার গ্রাম পঞ্চায়েত ও কাঁকসা পঞ্চায়েত সমিতির উদ্যোগে পাম্প বসানোর কাজ শুরু হয়। চাষের জমির উপর দুটি ঘর নির্মাণ করে এবং বোরিং করে সাবমার্সিবল পাম্প বসানো হয়েছে।

কিন্তু বিদ্যুৎ না পৌঁছানোয় আজও সাবমার্সিবল থেকে জল বের হয়নি। সেচের অভাবে ধুঁকছে সবজি চাষের জমি। শীতকালীন সবজি বেগুন, আলু, ফুলকপি, বাঁধাকপির বীজ ও চারা রোপন করেছেন চাষিরা। কিন্তু সেচের অভাবে বাড়ছে না সেই সব গাছ, এমনই অভিযোগ চাষীদের। কী করবেন ভেবে কুল পাচ্ছেন না।

চাষী পীযূষ কান্তি মন্ডল ও হৃদয় ঘোষ জানান, বিদ্যুতের দাবিতে একাধিকবার বিদ্যুৎ দফতরে গিয়েছেন। কাঁকসার বিডিও, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ও গ্রাম পঞ্চায়েতে একাধিকবার জানিয়েছেন। কিন্তু লাভ কিছু হয়নি। তৃণমূল প্রতিশ্রুতি দিতে পারে কিন্তু পূরণ করতে ব্যর্থ, এমন অভিযোগ তুলেছেন বিজেপি নেতা ইন্দ্রজিৎ ঢালী। বিদবিহার গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান গোপাল সরকার দ্রুত সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন। (বিশেষ বিশেষ ভিডিও দেখতে DURGAPUR DARPAN ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করুন)।

Leave a Comment

error: Content is protected !!