স্ত্রীকে খুন করে তিন বছর ধরে সেপটিক ট্যাঙ্কে দেহ লুকিয়ে রেখেও ধরা পড়ে গেলেন স্বামী

দুর্গাপুর দর্পণ, কুলতলি, ২৪ জুন ২০২৩: তিন বছর ধরে সেপটিক ট্যাঙ্কে স্ত্রীর দেহ লুকিয়ে রেখেও ধরা পড়ে গেলেন স্বামী। ২০২০ সালের মার্চ থেকে নিখোঁজ ছিলেন দক্ষিণ ২৪ পরগনার (South 24 Parganas) কুলতলির  টুম্পা মণ্ডল। তাঁর বাবা লক্ষ্মণ হালদার মেয়ের নিখোঁজ ডায়েরি করেন থানায়। সোনারপুর থানার পুলিশ গ্রেফতার করে টুম্পার স্বামী ভোম্বল মণ্ডলকে। কিন্তু টুম্পার কোনও খোঁজ না পাওয়ায় অপহরণ বা খুনের প্রমাণ মেলেনি। তাই জামিনে ছাড়া পেয়ে যায় ভোম্বল।

সম্প্রতি কলকাতা হাই কোর্টের (Calcutta HC) নির্দেশে মামলার ফের তদন্ত শুরু করে সিআইডি। দীর্ঘ জেরায় ভেঙে পড়ে ভোম্বল। সে জানায়, সোনারপুরের মিলনপল্লিতে ভাড়ার বাড়িতে থাকার সময় ২০২০ সালে স্ত্রীকে খুন করে দেহ সেপটিক ট্যাঙ্কে লুকিয়ে ফেলে। সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে দেহ উদ্বার করেন তদন্তকারীরা।
Bengali News septictank Sonarpur West Bengal



Leave a Comment

error: Content is protected !!
mission hospital advt