আপ্যায়নে ‘ত্রুটি’, রক্ষিতপুর থেকে মুখ ফেরাচ্ছে পরিযায়ীরা!

রক্ষিতপুরের ওই সরকারি জলাশয়ে এবারও পরিযায়ী পাখিরা এসেছিল। কিন্তু উপযুক্ত পরিবেশ না পেয়ে চলে গিয়েছে অন্যত্র। 

——————————————-

সনাতন গড়াই, দুর্গাপুর দর্পণ, কাঁকসা, ৫ জানুয়ারি ২০২৪: শীত পড়তেই দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জলাশয়ে পরিযায়ী পাখিদের আনাগোনা বাড়ে। পশ্চিম বর্ধমান জেলার (Paschim Bardhaman) দুর্গাপুরের কাঁকসা থানার রক্ষিতপুরের জলাশয়েও বরাবর শীতে পরিযায়ীরা আসে। তবে এবার যেন তারা মুখ ফিরিয়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, রক্ষিতপুরের ওই সরকারি জলাশয়ে এবারও পরিযায়ী পাখিরা এসেছিল। কিন্তু উপযুক্ত পরিবেশ না পেয়ে চলে গিয়েছে অন্যত্র। কারণ, পরিযায়ীদের আপ্যায়নে এবার ব্যাপক ত্রুটি দেখা গিয়েছে। তাই তারা অন্যত্র চলে যাচ্ছে। জানা গিয়েছে, ২০০৭ সালে বাম আমলে প্রাণিসম্পদ বিকাশ দফতর  ও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কাঁকসার রক্ষিতপুর সংলগ্ন এলাকায় দশ-বিঘার বেশি আয়তনের জমিতে একটি জলাশয় এবং এলাকার বেকার যুবক-যুবতীদের স্বনির্ভর করার জন্য ছাগলের খামার গড়ে উঠে।

জানা গিয়েছে, স্বনির্ভর গোষ্ঠী তৈরি করে জলাশয়ে মাছ চাষ এবং খামারে ছাগল চাষ শুরু হয়। প্রথম থেকেই জঙ্গল লাগোয়া এই জলাশয় পরিযায়ী পাখিদের পছন্দের জায়গা হয়ে ওঠে। তখন কয়েক হাজার পরিযায়ী পাখি ভিড় জমাত ওই জলাশয়ে। হঠাৎ এক সময় বন্ধ হয়ে যায় ছাগলের খামার। মাছ চাষেও ভাটা পড়ে। কচুরিপানা আর আগাছায় ঢাকতে শুরু করে জলাশয়।

তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসের পরে একবার জলাশয় সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হলেও শেষ পর্যন্ত সংস্কার আর হয়নি। বছর বছর কমতে শুরু হয় পরিযায়ী পাখির সংখ্যা। বছর পাঁচেক আগেও কয়েকশো পরিযায়ী পাখি দেখা যেত জলাশয়ে। গত বছর কিছু পরিযায়ী পাখি এসেছিল। এবার একেবারেই মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে তারা।

এলাকার পক্ষীপ্রেমী অশোক রায় জানান, এই জলাশয়ের সামনে পরিযায়ী পাখিদের দেখার জন্য বহু মানুষ ভিড় করতেন। জলাশয়টি কচুরিপানা আর আগাছায় মজে গিয়েছে। পাড়ের মাটি জলাশয়ে পরে জলাশয়ের আয়তনও দিন দিন ছোট হচ্ছে। পাখিরা এসে থাকবে কোথায়? তাই তারা অন্যত্র চলে যাচ্ছে। দ্রুত ওই জলাশয় সংস্কার করার দাবি তুলেছেন তিনি। স্থানীয়দেরও দাবি নতুন করে জলাশয় সংস্কারের পাশাপাশি ছাগলের খামার চালু করা হোক।

দুর্গাপুর রেঞ্জের রেঞ্জার সুদীপ ব্যানার্জি জানান, ওই জলাশয়ে পরিযায়ী পাখিরা আসছে কিন্তু সংখ্যা কমেছে। স্থানীয় পঞ্চায়েতের সাথে এবং উদ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে যাতে ওই জলাশয়টি সংস্কার করা যায়, সেই ব্যবস্থা করার চেষ্টা করা হবে। পরিযায়ী পাখিদের যাতে কোনও সমস্যা না হয় সেদিকেও নজরদারি বাড়াবেন। কবে আবার অতিথি পাখিরা পুরনো ছন্দে আপ্যায়ন পেয়ে ওই জলাশয়ে ফিরে আসে সেদিকেই তাকিয়ে রয়েছে এলাকাবাসীরা। (বিশেষ বিশেষ ভিডিও দেখতে DURGAPUR DARPAN ইউটিউব চ্যানেলটিও সাবস্ক্রাইব করুন)।

Leave a Comment

error: Content is protected !!